Hotline:
+8801713 -154677

0

Welcome to Dumur LTD !

Shopping Cart

আমলকির আচার (টক ঝাল ও মিষ্টি) ৫০০ গ্রাম

আমলকি, সরিষার তৈল, চিনি, লবন, পাঁচফোরান, জিরা গুড়া, ধনিয়া গুড়া, শুকনা মরিচ বাটা, হলুদ গুড়া, সরিষা বাটা, মৌরি, এলাচ, দারুচিনি, পানি।

350.00

  • Availability: In stock
  • SKU: 100
Quantity
Add to cart Buy Now

আমলকি প্রকৃতির একটি প্রচুর পুষ্টিগুন সমৃদ্ধ ফল, যাকে ইংরেজীতে আমলা নামে পরিচিত। বিভিন্ন ভাবে আপনি আমলকি খেতে পারেন। লবন দিয়ে চিবিয়ে, রস/ জুস বানিয়, লবন মাখিয়ে রোদে শুকিয়ে, হরেক রকম ভাবে আপনি আমলকি খেতে পারেন। প্রতিদিন একটি করে আমলকি অথবা আমলকির আঁচার খান, কারন আমলকির মধ্যে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন আছে যা মানব দেহের জন্য খুবই উপকারী।

          চলুন জেনে নেই  আমলকির কিছু উপকারিতাঃ

চোখের স্বাস্থ্যে আমলকিঃ

আমলকি চোখের জন্য খুবই উপকারি, আমলকীতে থাকা ভিটামিন সি ব্যাকটেরিয়ার সাথে লড়াই করে এবং আপনার চোখকে কনজেক্টিভাইটিস এবং অন্যান্য চোখের সমস্যা থেকে রক্ষা করে। আপনি নিয়োমিত আমলকি খান তাহলে আপনার চোখের দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধি করে। এবং এটি আপনার চোখের পেশিগুলোকে আরও বেশি শক্তিশালী করে থাকে।

আমলকি মুখে স্বাদ বাড়াতে সহায়তা করেঃ

যাদের খেতে ভালো লাগে না তারা নিয়োমিত আমলকি খেলে মুখের স্বাদ বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। আমলকির স্বাদ টক ও তেতো তাই মুখে রুচি বাড়ায়। 

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় এবং মানসিক চাপ কমায়ঃ

নিয়োমিত আমলকি খেলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃ্দ্ধি করে এবং মানসিক চাপ কমাতে সহায়তা করে। তাই প্রতিনিয়োত আমরা আমলকি খেতে পারি। অতিরিক্ত খাওয়া যাবে না। 

মস্তিষ্ক ও হৃদযন্ত্রের দুর্বলতায় আমলকির আঁচার ও মোরব্বাঃ

আমলকির আঁচার বা মোরব্বা মস্তিষ্ক ও হৃদযন্ত্রের দুর্বলতা দূর করে। শরীরের অপ্রয়োজনীয় ফ্যাট ঝরাতে সহায়তা করে।

পেশী মজবুত করেঃ

| যাদের শরীরের পেশি দুর্বল, তারা নিয়োমিত আমলকি খেতে পারেন।

কফ, বমি, অনিদ্রা, ব্যথা-বেদনায় আমলকিঃ

কফ, বমি, অনিদ্রা, ব্যথা-বেদনায় আমলকি অনেক উপকারী। যাদের এই সমস্যা গুলো আছে তার মাঝে মাঝে আমলকি আথবা আমলকির আঁচার খেয়ে দেখতে পারেন। আপনি যদি আমলকি চিবিয়ে খেতে পারেন এবং এতেই আপনার কফ, বমি, অনিদ্রা, ব্যথা-বেদনা সমম্যা সমাধান হয়ে যায় তাহলে আপনি চিবিয়ে খাবেন। আর যদি আপনি চিবিয়ে খেতে না পারেন তাহলে আপনি আঁচার ট্রাই করতে পারেন।

  নিঃশ্বাসের মধ্যে দুর্গন্ধ দূর করেঃ

প্রতিনিয়োত আমলকির রস খেলে নিঃশ্বাসের মধ্যে যে দুর্গন্ধ থাকে তা  দূর হয়। তাই আমরা সবাই প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় রাখতে পারি আমলকির রস অথরা আঁচার।

  ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করতে সাহায্য করেঃ

ব্লাড সুগার লেভেল নিয়ন্ত্রণে রেখে ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। এবং ডায়াবেটিস নিয়োন্ত্রনে সহায়তা করে। তাই প্রতিনিয়োত খারারের তালিকায় আমলোকি রাখতে পারেন।

  কোষ্ঠকাঠিন্য ও পাইলসের সমস্যা দূর করে আমলকিঃ

আমলকির রস কোষ্ঠকাঠিন্য ও পাইলসের সমস্যা দূর করে। এছাড়াও এটি পেটের গোলযোগ ও বদহজম রুখতে সাহায্য করে। যাদের এই সমস্যা গুলোতে ভূগছেন তাদের প্রতিনিয়োত আমলকি খাওয়া উচিৎ।

চুলের যত্নে আমলকিঃ

আমলকি চুলের টনিক হিসেবে কাজ করে থাকে এবং চুলের পরিচর্যার ক্ষেত্রে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। এটি কেবল চুলের গোড়াই মজবুত করে তা নয়, এটি চুল বৃদ্ধিতেও সাহায্য করে। এটি চুলের খুসকির সমস্যা দূর করে ও পাকা চুল প্রতিরোধ করে।


যে যে উপায়ে আপনি আমলকি খেতে পারেনঃ

আপনি অনেক ভাবেই আমলকি খেতে পারেন। আমি কয়েকটি পদ্ধতি দেখিয়ে দেয়ার চেষ্টা করছি। চলুন দেখে নেই কোন কোন উপায়ে আমলকি খাওয়া যায়।

টাটকাঃ 

টাটকা আমলকি আপনি লবন দিয়ে চিবিয়ে চিবিয়ে খেতে পারেন।

আমলকির রস বানিয়েঃ 

আমলকির রস বানিয়ে খেতে পারেন যা নিঃশ্বাসের মধ্যে যে দুর্গন্ধ দূর করবে।

শুখনো আমলকিঃ 

আমলকি রোদে শুকিয়ে খেতে পারেন। 

আমলকির আঁচার বানিয়েঃ

 আমলকির আঁচার অথবা চাঁটনি বানিয়ে খেতে পারেন।

আমলকির পাওডারঃ 

আমলকির পাওডার বানিয়ে খেতে পারেন।


প্রডাক্ট টাইপঃ আমলকির আচার (টক ঝাল ও মিষ্টি)
টাইপঃ অর্গানিক ও ন্যাচারাল
ব্রান্ডঃ ডুমুর লিঃ

নেট ওজনঃ ৫০০ গ্রাম>২৫০ গ্রাম

উপাদান আমলকি, সরিষার তৈল, চিনি, লবন, পাঁচফোরান, জিরা গুড়া, ধনিয়া গুড়া, শুকনা মরিচ বাটা, হলুদ গুড়া, সরিষা বাটা, মৌরি, এলাচ, দারুচিনি, পানি।
সতর্কতা

Dumur LTD

info@dumur.com.bd

Related products

Filter