Hotline:
+8801713 -154677

0

Welcome to Dumur LTD !

Shopping Cart

স্পেশাল নাগামরিচের আচার (টক ঝাল) ২০০ গ্রাম

250.00

  • Availability: In stock
  • SKU: 100
Quantity
Add to cart Buy Now

নাগা মরিচের আচার কেন খাবেন?

ঝাল আচার অনেকেই পছন্দ করে থাকেন। কিন্তু আসল সাদ খুজে পাচ্ছেন না। 

 

ক্যান্সার প্রতিরোধে সাহায্য করে।

নাগাতে আছে পর্যাপ্ত পরিমানে এন্টি-অক্সিডেন্ট যা শরীরের জন্য “দ্বাররক্ষী” হিসাবে কাজ করে। নাগা মরিচ মুখের স্বাদ বাড়াতে সহায়তা করে। নাগা মরিচ বয়স বাড়ার প্রক্রিয়াকে ধীর করতে সাহায্য করে।  মুখের তেতো ভাবকে দুরিভুত করে। নাগা মরিচ প্রাকৃতিক ভাবে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে থাকে।

 

মুখে রুচি রাড়াতে সহায়তা করে।

আমাদের মুখের তেতো ভাবে দুর করতে নাগামরিচের জুরি মেলা ভার। অনেক সময় জ্বার এর পর আমাদের মুখে রুচি নষ্ট হয়ে যায়। এই সময়টা খাবারের সাথে খেতে পারেন। এতে আপনার পারফেক্ট টনিক হিসাবে কাজ করবে।

 

শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।

নাগা মরিচে রয়েছে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন-সি। যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। 

ত্বকের জন্য দারুন উপকারী।

 

ত্বকের জন্য দারুন উপকারী।

নাগামরিচে ভিটামিন সি এর পাশা-পাশি রয়েছে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন -ই, যা শরীরের প্রাকৃতিক  তৈল উৎপাদনে সহায়তা করে। যা ত্বক সুস্থ্য রাখতে অনেক সাহায্য করে।

 

নাগামরিচে জিরো ক্যালোরি।

মজার ব্যাপার হচ্ছে, নাগা মরিচে কোন ক্যালোরি নেই। অর্থাৎ একদম শূন্য ক্যালোরিযুক্ত একটি খাদ্য উপাদান হলো নাগা মরিচ। আরো দারুণ তথ্য হলো, নাগা মরিচ খাওয়ার পরে শরীরের মেটাবলিজম প্রায় ৫০ শতাংশ পর্যন্ত বেড়ে যায়! তাই আপনি যদি ডায়েটে থাকেন, তবে প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় বেশী করে নাগা মরিচ যোগ করার চেষ্টা করুন।

 

রক্তে চিনির পরিমান নিয়ন্ত্রনে রাখতে সহায়তা করে।

যাদের ডায়াবেটিসের সমস্যা রয়েছে, তাদের জন্য নাগা মরিচ অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটি খাদ্য উপাদান। নাগা মরিচ রক্তে চিনির মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে কাজ করে। তবে এমনটা মনে করবেন না যে, অতিরিক্ত মিষ্টি ও চিনিযুক্ত খাবার খাওয়ার পরে নাগা মরিচ খেলে সাথে সাথে কাজ করবে! 

 

খাদ্য পরিপাকে সাহায্য করে।

নাগা মরিচে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার। কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দেখা দিলে, সেক্ষেত্রে নাগা মরিচ খেলে ভালো ফলাফল পাওয়া সম্ভব হয়। এছাড়াও, সাধারণ সময়ে খাদ্য দ্রুত পরিপাক করতে সাহায্য করে বলে নিয়মিত নাগামরিচ খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তোলা প্রয়োজন।

 

নাগা মরিচ খেলে মন মেজাজ ভালো থাকে।

 

ত্বকের ইনফেকশনের সমস্যায় দারুন কাজ করে থাকে নাগা।

নাগা মরিচে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট থাকার ফলে, শরীরের যেকোন অংশে ত্বকের ইনফেকশন হওয়া থেকে এটি প্রতিরোধ করে থাকে।

 

নাগাতে প্রচুর পরিমানে আইরন থাকে।

শরীরে আয়রনের ঘাটতি থাকলে নাগামরিচ খেতে পারেন।  যাদের শরীরে আয়রনের ঘাটতি রয়েছে তাদের প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় অল্প করে নাগা মরিচ বা নাগামরিচের আচার যোগ করা জরুরি। কারণ প্রাকৃতিক খাদ্য উপাদান হিসেবে নাগা মরিচে রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণ আয়রন।

 

চোখের জন্য দারুন উপকারী।

নাগামরিচে ভিটামিন সি থাকার পাশা -পাশি প্রচুর পরিমানে বেটা-ক্যারোটিন। যা সুস্থ্য চোখের জন্য খুবই উপকারি।

 

প্রডাক্ট টাইপঃ স্পেশাল  নাগামরিচের আচার ( ঝাল)

টাইপঃ অর্গানিক ও ন্যাচারাল

ব্রান্ডঃ ডুমুর লিঃ

নেট ওজনঃ ৪০০ গ্রাম>২০০ গ্রাম


উপাদান
সতর্কতা

Dumur LTD

info@dumur.com.bd

Related products

Filter